বিপদে ধৈর্য ধারণ করে আল্লাহর ওপর ভরসা রাখার নামই হচ্ছে ঈমান – তুহিন মালিক

0
10

এইচএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি মহাসড়কের ব্রিজের পার্শ্বে হালদা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে এক ছাত্রী আত্মহননের চেষ্টা করেছে। স্থানীয় কয়েকজন যুবক ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে বাড়ি পৌঁছে দেয়। প্রতিবছরই পাবলিক পরীক্ষার রেজাল্টের দিন আত্মহত্যার সংবাদ পাওয়া যায়! আমরা কি আমাদের জীবনটাকে ফুলের বাগান মনে করি? জীবনে কি শুধুই সুখ-সাফল্য থাকবে? দুঃখ-দুর্দশা-ব্যর্থতার গ্লানি থাকতে পারবে না? অথচ বিপদে ধৈর্য ধারণ করে আল্লাহর ওপর ভরসা রাখার নামই হচ্ছে ঈমান। পৃথিবীর সফল মানুষগুলো কঠিনতম দুঃখ-কষ্টের মধ্যে প্রচন্ড আত্মবিশ্বাস ও ধৈযধারণ করেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

আমাদের জীবনটা কোন ফ্লিমী আবেগ বা এডভেঞ্চারের জায়গা নয়! মা-বাবার অনেক কষ্ট ও আত্মত্যাগে বেড়ে উঠা আমাদের জীবনটা কখনও আত্মকেন্দ্রিক হতে পারে না। আর আত্মহত্যার ভয়াবহ পরিনতির কি, তা কি আমরা জানি?

আমরা কি জানি, ইসলামে আত্মহত্যা মহাপাপ। যার একমাত্র শাস্তি চিরস্থায়ী জাহান্নাম। আত্মহত্যা সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরানে এরশাদ করেছেন, “তোমরা নিজেদের হত্যা কোরো না, নিশ্চয়ই আল্লাহ তোমাদের প্রতি পরম দয়ালু এবং যে কেউ সীমা লঙ্ঘন করে অন্যায়ভাবে তা (আত্মহত্যা) করবে, তাকে অগ্নিতে দগ্ধ করব; এটা আল্লাহর পক্ষে সহজ।” (সূরা নিসা: ২৯-৩০)

“তোমরা নিজের হাতে নিজেদের জীবনকে ধ্বংসের মধ্যে নিক্ষেপ কোরো না।” (সূরা বাকারা: ১৯৫) “তোমরা আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হয়ো না। আল্লাহ যাবতীয় অপরাধ মার্জনা করেন।” (সূরা জুমার: ৫৩) আত্মহত্যা সম্পর্কে রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন,

‘তোমাদের পূর্ববর্তী লোকদের মধ্যে এক ব্যক্তি ছিল। সে আহত হয়ে ছটফট করতে লাগল। এ অবস্থায় সে ছুরি নিয়ে নিজেই নিজের হাত কাটল ও ব্যাপক রক্তপাত ঘটল এবং তার মৃত্যু হলো।’ আল্লাহ এ ব্যক্তি সম্পর্কে বলেছেন, ‘আমার এ বান্দা নিজের ব্যাপারে খুব তাড়াহুড়া করে ফেলছে। এ কারণে আমি তার প্রতি জান্নাত হারাম করে দিয়েছি।’ [ বোখারি :৩২৭৬]

‘যে ব্যক্তি পাহাড় থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করবে, সে জাহান্নামে অনুরূপভাবে আত্মহত্যা করতেই থাকবে এবং এটিই হবে তার স্থায়ী বাসস্থান। যে ব্যক্তি বিষ পান করে আত্মহত্যা করবে, তার বিষ তার হাতে থাকবে, জাহান্নামে সে সর্বক্ষণ বিষ পান করে আত্মহত্যা করতে থাকবে। আর এটা হবে তার স্থায়ী বাসস্থান। আর যে ব্যক্তি লৌহাস্ত্র দিয়ে আত্মহত্যা করবে, সে লৌহাস্ত্রই তার হাতে থাকবে। জাহান্নামে সে তা নিজ পেটে ঢুকাতে থাকবে, আর সেখানে সে চিরস্থায়ীভাবে থাকবে।’ [বোখারি ও মুসলিম]

‘যে ব্যক্তি বিষপানে আত্মহত্যা করবে, সে জাহান্নামের আগুনের মধ্যে অবস্থান করে ওই বিষ পান করতে থাকবে এবং সেখানে চিরকাল অবস্থান করবে। আর যে ব্যক্তি পাহাড় থেকে নিক্ষেপ করে আত্মহত্যা করবে, সে ব্যক্তি সর্বদা পাহাড় থেকে জাহান্নামের আগুনে পতিত হতে থাকবে, এভাবে সে ব্যক্তি সেখানে চিরকাল অবস্থান করবে।’ [মুসলিম] দয়াময় আল্লাহ আমাদের সবাইকে আত্মহত্যার মহাপাপ থেকে বেঁচে থেকে বিপদে ধৈর্য ধারণ করার তওফিক দান করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here